নতুন খবর

কর্ণাটকে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তাকে গাছে ঝুলিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হলো! নিশ্চুপ দালাল মিডিয়া!

একদিকে পুরো দেশ ও দেশের সংবাদ মাধ্যম যখন ভোট নিয়ে ব্যাস্ত তখন কর্ণাটক থেকে একটা দুঃখজনক খবর সামনে আসছে।  এক ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রীর মৃত দেহ গাছে ঝোলানো অবস্থায় পাওয়া গেছে। মধু(২৪) নামক ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের পর তার দেহকে গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনাটি ১৩ এপ্রিল ২০১৯ এর বলে জানা যাচ্ছে। ১৬ ই এপ্রিল রায়চুড়ের নভোদয় ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে কিছু কিমি(৩ থেকে ৪ কিমি) দূরে মধুর সম্পূর্ণভাবে পুড়ে যাওয়া দেহ গাছে ঝোলানো অবস্থায় দেখা যায়।

কিন্তু দিল্লী ও কলকাতায় বসে থাকা দালাল মিডিয়া এখন ভোট নিয়ে এতই ব্যাস্ত  যে কর্ণাটকের এই খবর এখনো অবধি মানুষের কান অবধি পৌঁছাতে পারেনি। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, কর্ণাটক পুলিশ দাবি করে যে এটা আত্মহত্যা। মধুর পরিবার ও বন্ধুরা পুলিশের দাবি মানতে অস্বীকার করে এবং তারা ন্যায় এর দাবি করে। যদিও দেশের রাজনৈতিক দলগুলি মধুর পরিবারকে একটা আশ্বাস পর্যন্ত দিতে পারেনি। পুলিশ FIR নিতেও দেরি করেছিল বলে অভিযোগ সামনে আসছে।

https://platform.twitter.com/widgets.js

সম্প্রতি রাহুল গান্ধীর সভার সামনে মধুর বন্ধুরা জাস্টিস চেয়ে প্রতিবাদ তুলেছিল। কিন্তু সেখানেও তারা কোনো আশ্বাস পাইনি। এরপর ১২০০০০ জন মানুষ অনলাইনে পিটিশন সাইনেই পর কর্ণাটকের পুলিশ সক্রিয়ভাবে কাজ করে। কর্ণাটক পুলিশ মধুর মা বাবার দাবির ভিত্তিতে সুদর্শন যাদব নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। কর্ণাটককের মানুষ মোমবাতি জ্বালিয়ে প্রায় প্রত্যেকদিন প্রতিবাদে রাস্তায় সরব হচ্ছে কিন্তু রাজ্য সরকার এ বিষয়ে এখনো কোনো আশ্বাস পর্যন্ত দেয়নি।

Source link

Tags

Related Articles

Close