নতুন খবর

যেদিন হার্দিকের কারণে আমার গর্ভবতী স্ত্রীর সমস্যা হয়েছিল, আমি সেদিনই ঠিক করে নিয়েছিলাম ওকে মারবই

গুজরাটের সুরেন্দ্রনগরে একটি জনসভা চলাকালীন কংগ্রেস নেতা হার্দিক প্যাটেলকে মঞ্চে উঠে সপাটে চড় মারে এক ব্যাক্তি। যখন হার্দিক প্যাটেলকে চড় মেরেছিলেন এই ব্যাক্তি, তখন হার্দিক মঞ্চে উঠে সভায় বক্তৃতা দিচ্ছিলেন।

হার্দিককে চড় মারা ওই ব্যাক্তির নাম তরুণ গজ্জর। তিনি জানান, হার্দিকের পাটিদার আন্দোলনের সময় ওনাকে অনেক সমস্যার সন্মুখিন হতে হয়েছিল। আর সেই কারণেই উনি হার্দিকের উপর হামলা করেন।

তরুণ গজ্জর বলেন, ‘পাটিদার আন্দোলনের সময় আমার স্ত্রী গর্ভবতী ছিল, আর একটি হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা চলছিল। আন্দোলনের জন্য সেই সময় আমাকে অনেক সমস্যার সন্মুখিন হতে হয়েছিল। আমি তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে ওকে আমি মারবই। আমি ওকে শিক্ষা দিতে চেয়েছিলাম।

https://platform.twitter.com/widgets.js

তিনি আরও বলেন, ‘আহমেদাবাদ র‍্যালির সময় আমি যখন আমার সন্তানের জন্য ওষুধ আনতে গেছিলাম, তখন ওদের আন্দোলন চলার জন্য সবকিছু বন্ধ ছিল। ওঁরা রাস্তায় নেমে অবরোধ চালাচ্ছিল। গোটা গুজরাট স্তব্ধ করে দিয়েছিল। হার্দিক গুজরাটের হিটলার।”

আপনাদের জানিয়ে রাখি, হার্দিককে থাপ্পড় মারার পর ওই ব্যাক্তিকে বেধড়ক মারধর করে হার্দিক এবং কংগ্রেস সমর্থকেরা। তাঁকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে, সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছে। কংগ্রেস এবং হার্দিক প্যাটেল তাঁদের নিজেদের দোষ ঢাকার জন্য এই ঘটনার দায় বিজেপির উপরে চাপিয়ে দিয়েছে।

Source link

Tags

Related Articles

Close