নতুন খবর

আবারও কেঁদে ফেললেন কুমারস্বামী!বললেন রোজ আমার মুখ্যমন্ত্রী পদ চলে যাওয়ার খবর দেখায় মিডিয়া।

নিজেকে অসহায় দেখিয়ে ভোটারদের সমর্থন চাওয়া রাজনীতিতে কোন নতুন বিষয় নয়। বামপন্থীরা এই ধরনের কাজের ক্ষেত্রে সবথেকে এগিয়ে। মানুষের কাছে অসহায় সেজে ভণ্ডামি করে ভোট চাওয়া বামপন্থীদের কাছে হাতের খেলা। তবে এখন অন্য রাজনৈতিক দলগুলিও এই নীতি শিখতে শুরু করেছে। দক্ষিণ ভারতের কর্ণাটক থেকে একটা বড় খবর সামনে আসছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, গতকাল কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী জনসাধারণের সামনে আবেগবশত হয়ে পড়েছিলেন।  নিজের কান্না থামাতে পারেননি বলে খবর। একটি রালি থেকে  বলেন যে আমার সম্পর্কে মিডিয়া মধ্যে ক্রমাগত বলা হয় যে এটা আমার শেষ দিন। মিডিয়া দিনরাত খবর প্রচার করে যে কুমারস্বামী আর মুখ্যমন্ত্রী থাকবে না। কাঁদতে কাঁদতে এটাই বলেন কুমারস্বামী।

মান্দ্যা জনসভায় কুমারস্বামী ভাবুক হয়ে যান। তিনি বলেন যে মিডিয়া ধারাবাহিকভাবে বলেছে যে আমার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শেষ দিন, কিন্তু আমার সম্পর্কে ভুল খবর প্রচার করা হচ্ছে। জানিয়ে রাখি যে এই সিট উপর এইচডি কুমারস্বামী এর ছেলে নিখিল কুমারস্বামী নির্বাচনে লড়াই করছে। এই কারণে জেডিএস সম্পূর্ণ শক্তি প্রয়োগ করে এখানে নির্বাচনে লড়াই করছে। এর আগেও অনেক এই রকম সুযোগ এসেছে, যখন কুমারস্বামী মান্দ্যা জনসভায় আবেগপ্রবন হয়েছিলেন।

তবে এখন যখন লোকসভা নির্বাচন চলছে তখন এইভাবে কেঁদে ফেলা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু হয়েছে। শুধু তাই নয়, কুমারস্বামী অভিযোগ তুলেছেন যে মিডিয়া উনাকে নিয়ে সঠিক খবর পরিবেশন করে না, উল্টে ভুল খবর পরিবেশন করে।
সম্প্রতি তাঁর বাবা ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগাউড়াও মিডিয়া এর সামনে তার কান্না ধরে রাখতে পারেনি। নিখিল কুমারস্বামী কংগ্রেস ও জেডিএস এর যৌথ প্রার্থী।

https://platform.twitter.com/widgets.js

এর আগের একবার কাঁদতে কাঁদতে কুমারস্বামী বলেছিলেন যে জোটের সরকার চালানো আর বিষপান করা একই ব্যাপার। কর্ণাটকের এক লোকাল চ্যানেলের দাবি যে তার ছেলের রাজনীতি চমকানোর জন্যেই এমন কাঁদার নাটক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী।নিখিল কুমারস্বামী কর্ণাটক এর মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামীর পুত্র। নিখিল কুমারস্বামীকে বসপ, JUD, সমাজবাদী পার্টি, ভারতীয় নতুন কংগ্রেস পার্টি, এহরা জাতীয় পার্টি সহ নির্দলীয় প্রার্থীর সাথে নির্বাচনে লড়াই করবেন। জোটের নির্ণয় অনুযায়ী, কংগ্রেস 20 টি এবং জেডিএস 8 টি আসনে নির্বাচনে লড়াই করবে বলে সূত্রের খবর।

Source link

Tags

Related Articles

Close