নতুন খবর

আমির, নাসিরউদ্দিনের কাছে ভারত অসুরক্ষিত মনে হলেও, এই বিদেশী কন্যা ভারতের ছেলেকে বিয়ে করে ভারত ভুমিকেই আপন করে নিলেন।

বলিউড অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহ, আমির খানের মতো কিছু মানুষ আছে যাদের হিন্দুস্থানকে(ভারত) অসহিষ্ণু মনে হয়, এবং এনাদের হিন্দুস্থানে থাকতেও ভয় লাগে। এনাদের মতো কিছু লোকের ধারণা হিন্দুস্থানে এখন ভালবাসা ও শান্তির জায়গায় ঘেন্না ও হিংসা চলে এসেছে এবং এই কারণে এনারা ভয় পেতে শুরু করেছেন। আমির, নাসিরউদ্দিনের মতো কট্টরপন্থীরা যখন ভারতকে অসুরক্ষিত মনে করছে সেই সময় আমেরিকার এক কন্যা ভারতে এসে এমন উদাহরণ স্থাপন করলো যা কট্টরপন্থীদের কড়া জবাব দিয়েছে।

আমেরিকার যুবতী ইউভি তিন মাস আগে শ্রীকৃষ্ণের ব্রজ ধাম অঞ্চলে ঘুরতে এসেছিলেন। ইউভি এসে তো ছিলেন হিন্দুস্থান ঘুরতে কিন্তু তারপর সে চিরদিনের জন্য হিন্দুস্থান এর হয়েই রয়ে গেলেন।ইউভি হিন্দুস্থানের ছেলে মহেশ এর প্রেমে পড়েন এবং মহেশ ও ইউভি পুরো জীবন একসাথে থাকার অর্থাৎ বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। শুক্রবার মথুরার রাধকুণ্ডে অবস্থিত রাধা মাধবের মন্দিরে দুজনে হিন্দু নিয়ম অনুসারে বিয়ে করেন ও হিন্দুস্থান কে নিজেই শশুর বাড়ি বানিয়ে নেয়।

আপনাদের জানিয়েদি আমেরিকার বাসিন্ধা খ্রিস্টান যুবতী ইউভি তিনমাস আগে হিন্দুস্থান ঘুরতে আসে এবং একমাস আগে তার পরিচয় হিন্দুস্থানের মহারাষ্ট্রের ছেলে মহেশ মোর এর সাথে হয়।মহেশ প্রায় ছয় বছর ধরে রাধকুণ্ডে ভজন করে। ফার্মেসি ডিগ্রি পাশ করা মহেশ ইউভিকে ব্রজ দর্শন করানো শুরু করেছিলেন এবং এই সমস্থকিছু চলাকালীনই ইউভি ও মহেশ দুজনদুজনকে ভালোবেসে ফেলে।ইউভি জানাই যে সে ভারতের ছেলে মহেশ এবং এখানের রীতিনীতিকে ভালোবেসে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়।

শুক্রবার মহেশ ও ইউভি ‘বর-বউ’ এর বেশে সেজেগুজে মন্দির পৌঁছায়। আচার্য ব্রজকিশোর গোস্বামী তাদের বিয়ের নিয়ম-কানুন সম্পন্ন করায়। বর-বউ দুজন দুজনকে আংটি পরায় এবং তারপর মালাবদল করা হয়। অগ্নিকে সাক্ষী দুইজনে সাতফেরা পূর্ণ করে,তারপর মহেশ বিদেশি বউ ইউভির মাথায় সিঁদুর দান করে বিয়ে সম্পূর্ণ করে। বিয়েতে উপস্থিত ছিল মহেশের মা রঞ্জনা,বাবা পোপাটলাল রাও,মামা সন্তোষ ও কাকা বাবাজী।ইউভি র মা বিয়েতে উপস্থিত থাকতে পারেনি তাই মহেশ জানিয়েছে যে তারা ভিজা বানিয়ে খুব শীগ্রই আমেরিকা গিয়ে ইউভির মায়ের আশীর্বাদ নেবেন। বিয়ের পর মহেশ ও ইউভি গিরিরাজির পরিক্রমা করতে চলে যায়। আমরা India rag এর তরফ থেকে ইউভি তথা মহেশকে নবদর্পনের সফলতার জন্য প্রভু শ্রীরামের কাছে কামনা করে ও দুইজনকে অসংখ্য অভিনন্দন জানায়।

Source link

Tags

Related Articles

Close